ঢাকা শনিবার, ১৩ই জুলাই, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ
বাংলাঃ ২৯শে আষাঢ়, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
আরবীঃ ৭ই মহর্‌রম, ১৪৪৬ হিজরি
  1. Lead 1
  2. Lead 2
  3. অপরাধ
  4. অর্থনীতি
  5. আইন-আদালত
  6. আন্তর্জাতিক
  7. আরো
  8. ইসলামিক
  9. কবিতা
  10. কৃষি সংবাদ
  11. খুলনা
  12. খেলাধুলা
  13. চট্টগ্রাম
  14. ছড়া
  15. জাতীয়
আজকের সর্বশেষ সবখবর

অভিনেতা হতে চেয়ে হলেন ‘গ্রিলকাটা চোর’

কলমের কণ্ঠস্বর ডেস্ক
প্রকাশিত: ২:১৯ পি.এম, ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২৩
Link Copied!

ছবি : সংগৃহীত

রাজধানীর একটি বাসা থেকে চুরির অভিযোগে রেজওয়ান আহমেদ (৩৮) নামের এক ব্যক্তিকে গ্রেপ্তার করেছে ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশ (ডিবি)। জানা গেছে, এইচএসসি পাস রেজওয়ানের স্বপ্ন ছিল অভিনেতা হওয়ার। কিন্তু অভিনয় করতে গিয়ে একপর্যায়ে তিনি চুরির পেশায় জড়িয়ে পড়েন।

চলতি বছরের গত ২৬ জুন অর্থাৎ ঈদুল আজহার দুইদিন আগে ঢাকার মোহাম্মদপুরের একটি বাড়ির দ্বিতীয় তলা থেকে ছয় ভরি সোনা, দুই লাখ টাকাসহ বিভিন্ন দামি জিনিস চুরি হয়। বারান্দা ও জানালার গ্রিল কেটে এই চুরির ঘটনা ঘটানো হয়। এ ঘটনায় মামলা দায়ের হলে তদন্তে নেমে সম্প্রতি মোহাম্মদপুর এলাকা থেকে রেজওয়ান আহমেদকে গ্রেপ্তার করে ডিবি পুলিশ।

পুলিশের এই বিশেষায়িত শাখা বলছে, গত ১৫ বছরে ঢাকার বিভিন্ন এলাকায় প্রায় পাঁচ শতাধিক বাসায় গ্রিল কেটে চুরি করেছেন রেজওয়ান। তার বিরুদ্ধে অন্তত পাঁচটি মামলা রয়েছে। এর আগেও একাধিকবার তিনি পুলিশের হাতে গ্রেপ্তার হয়েছিলেন।

জিজ্ঞাসাবাদে রেজওয়ান ডিবিকে জানান, তার স্বপ্ন ছিল অভিনেতা হওয়ার। সেই স্বপ্ন বাস্তবায়নে একটি নাট্য কর্মশালায় প্রশিক্ষণ নিয়েছিলেন। একটি শর্টফিল্মে অভিনয়ও করেছেন তিনি। ওই অভিনয়ের সূত্রে কয়েকজনের সঙ্গে তার বন্ধুত্ব হয়। সেই বন্ধুদের পাল্লায় পড়ে ফেনসিডিলের নেশায় আসক্ত হন রেজওয়ান। পরে নেশার টাকা জোগাতে ফরহাদ নামের এক বড় ভাইয়ের সঙ্গে গুলশান-বনানী এলাকায় চুরি শুরু করেন। প্রতি মাসে চার থেকে পাঁচটি বাসায় চুরি করেন তিনি। সন্ধ্যার দিকে ঢাকার বিভিন্ন এলাকা ঘুরে ‘টার্গেট’ ঠিক করেন রেজওয়ান। এরপর ‘স্পাইডারম্যানের’ মতো দেয়াল বেয়ে ওপরে উঠে প্রথমে বারান্দা ও জানালার গ্রিল কাটেন। পরে ভেতরে ঢুকে সোনা, টাকাপয়সাসহ দামি জিনিসপত্র নিয়ে পালিয়ে যান।

এ বিষয়ে ডিবির লালবাগ বিভাগের উপকমিশনার মশিউর রহমান বলেন, নেশায় পড়ে অনেক সৃজনশীল ব্যক্তিও নানান অপরাধে জড়িয়ে পড়েন। চুরি-ছিনতাই করে নেশার টাকা জোগাড় করেন। এটা খুবই দুঃখজনক।